Select Page

কেন ঢাকাবাসী ‘দি কেবিন ঢাকা’-য় হেরোইন আসক্তির কার্যকরী চিকিৎসা পাবে

বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী দেশগুলোতে যেমন-মিয়ানমার, আফগানিস্থান-এ আফিম পপির ব্যাপক চাষ হয়। এই পপি থেকেই হেরোইন হয়। দেশগুলো নিকটবর্তী হওয়ার কারণে ঢাকায় হেরোইন এবং আফিম দুটোই অত্যন্ত সুলভ এবং এই দুটোই তীব আসক্তি সৃষ্টিকারী। অপিয়েট আসক্তির যথাযথ চিকিৎসা না হলে এসব নেশাজাতীয় দ্রব্যের অপব্যবহার এবং আসক্তি ব্যক্তির জীবনে চরম নেতিবাচক প্রভাবসহ মুত্যু পর্যন্ত ঘটাতে পারে।

আফিম বা অপিয়েট যেমন- মরফিন, কোডেইন, হেরোইন, আফিম) এবং সিনথেটিক আফিম বা অপিয়েট (যেমন- মেথাডন, হাইড্রোকোডন এবং ফেনটানিল) অপিয়েট গোত্রের অন্তর্ভূক্ত ড্রাগ বা ওষুধ। হেরোইন এবং আফিম বা অপিয়াম সদৃশ উচ্ছ্বাস বা ইউফোরিক অনুভূতি সৃষ্টি করে বলে অক্সিকনটিন জাতীয় বিভিন্ন ডাক্তার নির্দেশিত ব্যথানাশক ঔষধ অপব্যবহার করার প্রবণতা সর্বত্র বেড়ে চলেছে, বেশীরভাগ ক্ষেত্রে এই ঔষধগুলো মুখ দিয়ে গিলে নেওয়া হয় অথবা গুড়া করে নাক দিয়ে ভিতরে টেনে নেওয়া হয়। নাক দিয়ে টেনে, ধুমপানের মাধ্যমে অথবা ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে হেরোইন নেওয়া হয়। আফিম ধুমপানের মাধ্যমেই সবচেয়ে বেশী নেয়া হয়, তবে চায়ের মতও আফিম গ্রহন করা হয়।

এই ধরণের ড্রাগ গুলোর মাত্রাতিরিক্ত (ওভারডোজ) প্রভাবে মৃত্যু ঘটা সাধারণ একটি ব্যাপার। সবরকম অপিয়েডই খুব দ্রুত সহনক্ষমতা (টলারেন্স) সৃষ্টি করে বলে ব্যবহারকারীরা তাদের কাংখিত প্রভাব পাবার লক্ষ্যে প্রতিবার ড্রাগের মাত্রা বাড়াতে থাকে। অপিয়েড শ্বাসক্রিয়া ও হৃদক্রিয়া নিয়ন্ত্রণকারী কেন্দ্রিয় স্নায়ুতন্ত্রকে দমিয়ে রাখে। মাত্রাতিরিক্ত (ওভারডোজ) অপিয়েড শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে।

প্রথমদিকে তীব্র উচ্ছ্বাস এবং তীৰ্ন একটি অনুভুতি পাবার জন্য শুরু করলেও এবং চালিয়ে গেলেও, পরে মূলত: এটা প্রত্যাহারের ফলে যেই কষ্টদায়ক উপসর্গ সৃষ্টি হয়, তা এড়িয়ে যাবার জন্যই সব ব্যবহারকারী হেরোইন বা আফিম ব্যবহার অব্যাহত রাখে। কারণ হেরোইনের সহনক্ষমতা খুব দ্রুত বৃদ্ধি পায় ফলে এটা ভাল অনুভূতি পাবার জন্য যত না বাড়াতে হয়, তার চেয়ে খারাপ অনুভূতি এড়িয়ে যাওয়াই ব্যবহারের মূখ্য উদ্দেশ্য হয়ে দাঁড়ায়। একটি প্রচলিত ভ্রান্ত ধারণা আছে যে, হেরোইন শারীরিকভাবে আসক্তির এমন একটি বিপজ্জনক অবস্থায় নিয়ে যায় যখন ব্যক্তি হেরোইন ছাড়া আর বাঁচতে পারে না। বাস্তবতা হচ্ছে, যদিও হেরোইন ছাড়ার সময়টা (ডিটক্স) শারীরিক ও মানসিকভাবে অস্বস্তিকর কিন্তু এটা আসলে জীবনের জন্য হুমকী স্বরূপ নয়।

দি কেবিন ঢাকা-য় আফিম এবং হেরোইন আসক্তির কার্যকরী চিকিৎসা

দি কেবিন-এ আমরা আসক্তির প্রকৃতি বুঝে ক্লায়েন্টদের উপযোগী চিকিৎসা প্রোগ্রামের ব্যবস্থা করে থাকি। আমাদের ক্লায়েন্টরা তাদের কর্মজীবন, পারিবারিক জীবন বা ছাত্রজীবনের দায়িত্ব রক্ষা করেই বহির্বিভাগীয় ব্যবস্থাপনায় আমাদের সেবা নিতে পারেন। সংশ্লিষ্ট সকল পেশাজীবীদের সমন্বয়ে কাউন্সেলিং-এর সুবিধাদি রয়েছে, যেখানে ক্লায়েন্টরা একক এবং দলীয় উভয় প্রকার কাউন্সেলিং সেবা পেতে পারেন। ডিটক্স শুরু করার ক্ষেত্রে, ক্লায়েন্টদের সকল প্রকার মেডিকেল সহায়তা ও দলীয় চিকিৎসা আমাদের কর্মরত অভিজ্ঞ সাইকিয়াট্রিস্ট বা মনোবিজ্ঞানী বা সাইকোথেরাপিস্ট দ্বারা করা হয়। তবে চিকিৎসা সম্পূর্ণ করার আগেই মানসিক ক্রিয়া সম্পন্ন ঔষধ থেকে ক্লায়েন্টদের বিরত করে থাকে।

দি কেবিন চিয়াং মাই-এ আফিম এবং হেরোইন আসক্তির জন্য আবাসিক পুনর্বাসন চিকিৎসা

দি কেবিন চিয়াং মাই

কিছু ক্লায়েন্টের জন্য আবাসিক পুনর্বাসন চিকিৎসা বেশী উপযুক্ত হতে পারে। শান্তিপূর্ণ এবং সংরক্ষিত এলাকায় অবস্থিত দি কেবিন চিয়াং মাই সুস্থ ও সজীব হয়ে ওঠার জন্য একটি আদর্শ পরিবেশ বা স্থান। পশ্চিমা স্বীকৃতিপ্রাপ্ত থেরাপিস্ট দ্বারা চিকিৎসা সেবার একটি সম্পূর্ণ দলের সার্বক্ষণিক (২৪ ঘন্টা) সেবায় এই দি কেবিন চিয়াং মাই সবরকম ঝুঁকিপূর্ন অবস্থা (যা কিছু আপনাকে আফিম বা হেরোইন নিতে উসকে দেয় বা প্ররোচিত করে) থেকে মুক্ত। এখানকার সুবিধাদি একটি বিলাসবহুল রিসোর্ট এর মতোই, এখানে রয়েছে ব্যক্তিগত বাংলো, নদী পাশ্ববর্তী বাগান এবং সতেজকারী সাতারের পুল। আন্তঃবিভাগীয় আসক্তি চিকিৎসা প্রোগ্রামে রয়েছে শরীর চর্চা কেন্দ্র এবং মাইন্ডফুলনেস থেরাপীর সুবিধা-যার মাধ্যমে একজন ব্যক্তি মাদক থেকে মুক্ত হওয়ার প্রক্রিয়াতে থাকবেন।

 

এখনই সাহায্য নিন

হেরোইন আসক্তির চিকিৎসা কার্যক্রম সম্পর্কে আরো জানতে বা বাধ্যবাধকতাহীন পরিমাপনের/এ্যাসেসমেন্টের জন্য আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন এবং দেখুন কিভাবে আমরা আপনাকে সাহায্য করতে পারি। আরোগ্যের পথে এখনই আপনার যাত্রা শুরুর জন্য এই পৃষ্ঠার উপরে ডানদিকে সংক্ষিপ্ত ফরমটি পূরণ করুন, অথবা সরাসরি আমাদেরকে কল করুন এই নাম্বারে +০১৭৭১৫২৮০৮৬

এখনই আমাদের ফোন করুন
+৮৮০১৭৭১৫২৮০৮৬

আমাদের পুস্তিকা ডাউনলোড করুন