Select Page

কেন ঢাকাবাসীরা দি কেবিন ঢাকায় উদ্বেগজনিত সমস্যার কার্যকর চিকিত্‍সা পাবে

উদ্বেগ অনেক রোগের সমষ্টি যার সংশ্লিষ্ট উপসর্গ থাকে। সাধারনতঃ দুশ্চিন্তামূলক রোগের মধ্যে উদ্বেগজনিত রোগ, প্যানিক রোগ, বিশেষ ভীতি, আঘাত পরবর্তী মানসিক চাপজনিত রোগ, সামাজিক ভীতি, শুচিবায়ু এবং মাদক সম্পর্কিত উদ্বেগজনিত উপসর্গ থাকে। এই সব রোগেই এই ধরনের লৰনগুলো থাকে˗ ভয়, দুশ্চিন্তা, অত্যধিক উত্তেজিত অবস্থা, স্নায়বিক দুর্বলাবস্থা, মনোযোগের অভাব, সমস্যার প্রতি অতিমাত্রায় প্রতিক্রিয়া বা কল্পনামুলক সমস্যা তৈরি এবং পেশাগত, সামাজিক এবং শিক্ষামূলক কাজে সমস্যা হয়।

উদ্বেগজনিত রোগ অনেক প্রচলিত এবং পশ্চিমা দেশের গবেষণায় দেখা গেছে, ২৮% প্রাপ্তবয়স্ক জনসাধারনই উদ্বেগ সংশ্লিষ্ট রোগে ভুগছে ।উদ্বেগজনিত রোগ প্রায়ই কিশোর বয়সের শেষের দিকে এবং প্রাপ্তবয়সের প্রথম দিকে হয়ে থাকে। কিন্তু পরবর্তীতে উদ্বেগের আবির্ভাব ও অস্বাভাবিক নয়৷ বিশেষতঃ কোন চাপমূলক পরিস্থিতি বা জীবনে হঠাৎ নাটকীয় পরিবর্তনের পর।

উদ্বেগজনিত রোগ চিকিৎসা ছাড়া কমে না। যদিও অনেকেই এই উপসর্গগুলো নিয়ে বেঁচে থাকার জন্য জীবনধারা সংশোধন করে চলতে শিখে। তবে এটাও দেখা যায় যে একজন ভুক্তভোগী প্রায়ই পেশাগত জীবনে ব্যর্থতা, সামাজিক ব্যর্থতা, মাদকের অপব্যবহার এবং আত্মহত্যার ঝুঁকিতে থাকেন।

বাংলাদেশে উদ্বেগজনিত রোগ এবং এর উপসর্গের সর্বাধিক প্রচলিত চিকিৎসা হচ্ছে বেঞ্জোডাইজেপিন নামক ওষুধ। ক্লায়েন্টদের একটা বড় অংশ এ ঔষধের মাধ্যমে চিকিৎসার ফলে এর প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে এবং ঔষধ ছেড়ে দিলে উদ্বেগের লক্ষনগুলো ফিরে আসার সাথে সাথে খুব দ্রুত টলারেন্স/সহনমাত্রা তৈরি হয়। এছাড়াও বেঞ্জডাইজেপিন ডাক্তার নির্দেশিত ওষুধের মধ্যে দ্বিতীয় ঔষধ যার অত্যধিক মাত্রা মৃত্যুও ঘটাতে পারে।

দি কেবিন ঢাকায় আমরা উদ্বেগজনিত রোগের ৰেত্রে কগনেটিভ বিহেভিয়ার থেরাপি ব্যবহার করে বর্হিবিভাগীয় সেবা দেই। ইউএস এবং যুক্তরাজ্যে এখন সিবিটি  জনপ্রিয় এবং কার্যকরী থেরাপি মডেল। আমাদের উদ্বেগজনিত রোগের চিকিৎসার জন্য ঔষধের প্রয়োজন পড়ে না, আমাদের অভিজ্ঞতা বলে কাউন্সেলিং সেশন সম্পূর্ন করার মাধ্যমেই ক্লায়েন্ট খুব দ্রুত তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারে।

উদ্বিগ্নতা বা দু:শ্চিন্তার সৃষ্টির সাথে সম্পর্কিত জ্ঞানীয় (/চিনত্মাধারার) সাথে মিলিয়ে ব্যক্তি যে আচরণ করে সেই লক্ষণগুলো সনাক্ত করা, মোকাবেলা এবং চিন্তা ও আচরণকে ইতিবাচকভাবে পরিবর্তন করার ক্ষেত্রে সিবিটি সমন্বয় সাধন করে। কগনেটিভ বিহেভিয়র থেরাপী হচ্ছে, একধরণের নির্দেশনা মূলক চিকিৎসা পদ্ধতি-যা প্রয়োগ করে একজন কাউন্সেলর রোগীকে বিভিন্ন বিষয়ে শিক্ষা প্রদান করে এবং প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন, তবে সর্বোপরি সেই শিৰনীয় কৌশলগুলোর প্রয়োগ এবং ব্যবহারিক জীবনে তার ব্যবহার রোগী নিজে করবেন। যখন একজন রোগী/ক্লায়েন্ট দি কেবিন ঢাকার উদ্বেগজনিত বৈকল্যের চিকিৎসা কার্যক্রম শেষ করবেন, তিনি (রোগী) এই নতুন কৌশলগুলোতে দক্ষ হয়ে উঠবেন এবং এগুলো তার প্রতিদিনের দৈনন্দিন কর্মসূচীতে অন্তর্ভূক্ত করতে পারবেন, এভাবেই তিনি ভবিষ্যতে এ ধরণের উদ্বিগ্নতা তৈরী হওয়া এবং এর পর্যায়ক্রমিক চিকিৎসার প্রয়োজনকে প্রতিরোধ করতে পারবেন।

 

এখনই সাহায্য নিন

বাধ্যবাধকতাহীন পরিমাপনের/এ্যাসেসমেন্টের জন্য আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন এবং দেখুন কিভাবে আমরা আপনাকে সাহায্য করতে পারি। আরোগ্যের পথে এখনই আপনার যাত্রা শুরুর জন্য এই পৃষ্ঠার উপরে ডানদিকে সংক্ষিপ্ত ফরমটি পূরণ করুন, অথবা সরাসরি আমাদেরকে ফোন করুন এই নাম্বারে +০১৭৭১৫২৮০৮৬

এখনই আমাদের ফোন করুন
+৮৮০১৭৭১৫২৮০৮৬

আমাদের পুস্তিকা ডাউনলোড করুন